ইমাম গাযালি (র.)

play icon Listen to this article
0

ইসলাম ধর্মের মধ্যে মুসলিম বিশ্বের শ্রেষ্ঠ দার্শনিক এবং ইসলামিক চিন্তাবিদ ছিল আল গাযালি (র.)। তার পুরো নাম হলো ইমাম আবু হামিদ মুহাম্মদ আল গাযালি (র.)। মুহাম্মদ হলো নাম এবং উপনাম হচ্ছে আবু হামিদ। তিনি ৪৫০ হি: ১০৫৮ খ্রিস্টাব্দে ‘তুস’ নগরে জন্ম গ্রহণ করেন। তার পিতার নাম মুহাম্মদ আততুসি। তিনি ধর্মীয় এবং নৈতিক শিক্ষা অর্জনের পাশাপাশি সুফিবাদের উপর গুরুত্ব প্রধান করতেন। মানুষের আধ্যাত্মিক এবং আত্নিক উন্নতির জন্য নৈতিক শিক্ষা যে কতখানি আবশ্যক তা তিনি তার লেখনীতে তুলে ধরেন। তিনি ইসলামি দর্শন ও সুফিবাদকে সুপ্রতিষ্ঠিত করেছেন। তিনি বিভিন্ন বিষয়ে অনেক মৌলিক গ্রন্থ রচনা করেন। তার মধ্যে উল্লেখ যোগ্য হলো “ইহইয়াউ উলুমিদ্ দীন” (ধর্মীয় বিজ্ঞানের পুনর্জীবন)। প্রামাণ্য এবং যুক্তি পূর্ণ দলিলের মাধ্যমে তিনি ইসলামের প্রাধান্য প্রতিষ্ঠা করেন। ইসলামি দর্শন ও শিক্ষায় অবদানের স্বীকৃতি স্বরুপ তাকে ‘হুজ্জাতুল ইসলাম’ (ইসলামের দলিল) নামে অভিহিত করা হয়।
ইসলাম ধর্মের এই শ্রেষ্ঠ দার্শনিক ১১১১ খ্রি. ইন্তেকাল করেন।

 


আরো পড়ুন-


Screenshot 3
বিজ্ঞাপনঃ বই কিনুন, বই পড়ুন

0

নিচের লেখাগুলো আপনার পছন্দ হতে পারে

কবিতা কোরআনের শাসন আফছানা খানম অথৈ

কোরআনের শাসন আফছানা খানম অথৈ সত্যিকারের ভালো মানুষ নেই জগতে টাকার কাছে বিক্রি হয়ে গেছে মনুষ্যত্ব। লোপ পেয়েছে মানুষের জ্ঞান
ইসলামের জীবন দর্শন- লেখক ডট মি

ইসলামের জীবন দর্শন-(এক)

ইসলামের জীবন বিধান দর্শন জ্ঞান-(এক)   ইসলামী জীবন বিধানের মূল কন্ঠস্বর হলো কোরআনের জ্ঞান দর্শণ ও আহলে বাইত প্রেম দর্শণ

কুরআন ও হাদীসের আলোকে ছাত্র ও শিক্ষকের সম্পর্ক।

যিনি শিক্ষাগ্রহণ করেন তিনি ছাত্র এবং যিনি শিক্ষাদান করেন তিনি শিক্ষক। আর তাদের মধ্যকার সম্পর্কই ছাত্র-শিক্ষক সম্পর্ক। এ সম্পর্ক হচ্ছে

আসুন, আমরা পরোপকারী হই

পরোপকার একটি মহৎ গুণ। এটি প্রিয় নবী (সা.) এর সুমহান আদর্শ, খাঁটি মোমিন-মুসলমানের পরিচয়। মহান আল্লাহ তায়ালা এরশাদ করেন, ‘আমার

Leave a Reply