একাকীত্ব

0

মনটা আমার ভালো নেই
কারণটাও ঠিক জানা নেই
চোখে নোনা জলের ধারা এসে জানাচ্ছে
মনের মধ্যে যেন কিছু একটা ঘটছে।

আশেপাশে রয়েছে অনেক লোক
সবার ভিড়ে খুঁজে বেড়াই সেই দুচোখ
শত চেষ্টাতেও ঝাপসা চোখ থেকে
অশ্রু কণা পারছি না ধরে রাখতে।

গাঢ় হচ্ছে কালো অন্ধকার যতো
বেষ্টন করছে নিঃসঙ্গতা ততো
মনের আনাচে কানাচে আনন্দে একাকীত্ব
নৃত্য করে বেড়াচ্ছে অবিরত।

কি করবো ঠিক করতে পারছিলাম না
সোজা চলে যাই ছাদের খোলা আকাশের নিচে
চেয়ে রই চাঁদ বিহীন আকাশের দিকে
অমাবস্যার ঘুটঘুটে অন্ধকারে তারারাও নেই।

মনের ভেতর অস্থিরতা দলা পাকিয়ে উঠেছে
কি করে যে অবুঝ মনটাকে সামলাই
তাকে সামলানো যে আমার কম্ম নয়
কষ্টের পারদ চড়তে থাকে।

ধৈর্য্য ও তার বাঁধ ভেঙে প্লাবিত করছে
শত চেষ্টাতেও পারছি না সব প্রতিকূলতাকে
জয় করে বিজয়ের পতাকা উত্তোলন করতে।
আমি কেবল সুতো বিহীন একটা ঘুড়ির মতো ভাসতে থাকি
কোথায় গিয়ে যে মুখ থুবড়ে পড়বো জানিনা।

ঠিক এমন সময় একজন এসে সঙ্গ দেয়
রাতভর কথা হয়,আড্ডা হয়
তখন মনে হয় কাউকে তো পেয়েছি
এমন একাকীত্বের সময়, সঙ্গ হিসেবে।

সে ক্ষণিকের জন্য আসা
আবার চলে যাওয়া, কেনই বা আসছিলি
সান্ত্বনা দেওয়ার জন্য হয়তো, আবার হয়ে গেলাম
নিঃসঙ্গ।

 

আরো পড়ুন-

0

Muhitul Islam

Author: Muhitul Islam

Related Posts

পেয়ারীর রায় — সুজন চন্দ্র দাস

অপরাধ করার পরও অপরাধী যতটুকু না শাস্তি পায় কাউকে সত্যিকার ভালোবেসে অধিক শাস্তি হয় পেয়ারীর রায়; মানুষ তার প্রেমেই পড়ে

ভারত মাতা- Dipankar Saha (Deep)

নমঃ নমঃ নমঃ      ভারত মাতা। তব চরণে করি     নত মাথা।। তুমি আমাদের   জন্মদাতা- এই জীবনের শক্তিদাতা।। দুঃখ
হাসপাতালের শয্যা- কবিতা

হাসপাতালের শয্যা থেকে বলছি  – সুজন চন্দ্র দাস

আমি হাসপাতালের শয্যা থেকে বলছি দিন শেষে বলি, এইতো আরো একটা দিন বেঁচে গেছি নরকের যন্ত্রণা সহ্য করে বেঁচে আছি
পঞ্চকবি, পঞ্চপান্ডব, অমিয় চক্রবর্তী, বিষ্ণু দে, বুদ্ধদেব বস্য, সুধীন্দ্রনাথ দত্ত, জীবনানন্দ দাস

বাংলা সাহিত্যের পঞ্চপান্ডব এবং পঞ্চকবি

বাংলা সাহিত্যের পঞ্চকবি এবং পঞ্চপান্ডব রয়েছে।  পঞ্চপান্ডব বলে পরিচিত কবিরা রবীন্দ্রনাথের জীবদ্দশায় রবীন্দ্র বলয়ের বাইরে গিয়ে কবিতা রচনা করেছিলেন। এই পাঁচজন

Leave a Reply