হলুদ গোলাপ ফুল

ফুলের ছবি- না দেখলে মিস করবেন

আপনাদেরকে পৃথিবীর নানা প্রান্তের দশটি ফুলের ছবি দেখাতে যাচ্ছি। এই ছবিগুলো পৃথিবীর মোটামুটি বিখ্যাত কিছু ফটোগ্রাফারের তোলা। আশা করা যায় সবগুলো ছবিই আপনাদের ভালো লাগবে। যেহেতু ছবিগুলো কপিরাইট ফ্রি, তাই ক্রেডিট ছাড়াও ব্যবহার করা যাবে।

কয়েক ধরণের ছবি আপনাদের দেখাবো(যেকোন একটি বেছে নিতে পারেন)-

দেখে নিন সুন্দর দশটি ফুলের ছবি

যারা ছবিগুলো তুলেছেন তাদের নামসহ কিছু ফুলের ছবি আপনাদের দেখাতে যাচ্ছি। আপনারা চাইলে ডাউনলোডও করে নিতে পারবেন। এই তালিকায় বাংলাদেশী ফুলও স্থান পাবে। ছবিগুলো আমরা নিয়েছি Pixabay থেকে। তাই সবগুলোই কপিরাইট ফ্রি।
কথা না বাড়িয়ে চলুন দেখে নেয়া যাক-
  1. এই ছবিটি তুলেছেন- Virandek নামের একজন জার্মান ভদ্রলোক। উনি ফ্রাঙ্কফুর্টে বাস করেন- Marriage Flower নামে এই ছবিটি pixabay তে পাওয়া যাচ্ছে।
    marriage flower 1552679350

     
  2. এই ছবিটি তুলেছেন Devanath, উনি হাঙ্গেরীতে বাস করেন। সবাই দেখে চিনতে পারছেন, এটা পদ্মফুলের ছবি
    lotus 1552679753
  3. ক্যানন EOS 70D ক্যামেরা দিয়ে এই ছবিটি তুলেছেন সিঙ্গাপুরের একজন তরুনী। তার নাম Bich Nguyen Vo
    sunflower 3113318 960 720 1
  4. ফুলটির নাম Dandelion, ডাচল্যান্ডের জনি লিন্ডনারের তোলা ছবি এটি। এটি তুলতে উনি ক্যানন EOS 750D ক্যামেরা ব্যবহার করেছেন
    dandelion 3416140 960 720 1
  5. টিউলিপ ফুলের ছবিটি তুলেছেন Petra নামের এক তরুণী(সম্ভবত জার্মান)। উনি Nikon D750 ক্যামেরা ব্যবহার করেছেন।
    tulips 3339416 960 720 1
  6. ছবিটি তুলেছেন কসোভোর Bess Hamiti. ফুলটির নাম ডেইজি ফুল
    marguerite 729510 960 720 1 1
  7. এটি আমাদের জাতীয় ফুল শাপলাঃ ছবিটি LLona র তোলা। উনি Freiburg এ বাস করেন।
    water lily 1857350 960 720 1
  8. ফুলটির নাম Anemone, ছবি তুলেছেন Österreich এর Petra
    anemone 2396299 960 720 1
  9. গোলাপ ফুল। যিনি ছবিটি তুলেছেন সেই ভদ্রমহিলার নাম Susanne Jutzeler . উনি বাস করেন Schweiz এ
    rose 2417334 960 720 1
  10. এটাকে বলা হয় Pasque Flower. ফটোগ্রাফারের নাম Martin Winkler. উনি বাস করেন Österreich এ
    pasqueflower 1585303 960 720 1
এই ছিলো আজকের দশটি ছবি। ইমেজ কম্প্রেশন চালু থাকার কারণে ছবিগুলো তাদের আসল সৌন্দর্য্য হারাতে পারে। যারা ছবিগুলো তুলেছেন তারা সত্যিই অসাধারণ চিত্রগ্রাহক। ছবি দেখতে ভালো না হলে সব ছবির লিংক পরে দিয়ে দেয়া হবে। আপাতত উপভোগ করুন- আর আপনাদের কোন ফুলটি সবচেয়ে ভালো লাগলো নিচের কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাবেন।

গোলাপ ফুলের ছবি

আমরা গোলাপ ফুল বলতে সাধারণত লাল গোলাপ দেখে অভ্যস্ত। স্রষ্টার অসাধারণ সৃষ্টি এই ফুলটি যে বিভিন্ন রঙের হয় সেটা অনেকে হয়তো এখনো জানেন না। সবার জন্য এই পোস্টের মাধ্যমে পাঁচটি আলাদা রঙের ফুলের ছবি আপনাদেরকে দেখাতে চলেছি। ইন্দোনেশিয়ার প্রথম প্রেসিডেন্ট সুকর্ণের একটি উক্তি শোনাই-

Rose never propagandize its fragrant, but its own fragrance spreads surrounding

মিথ, সত্য আর সাহিত্য না বললেই নয়ঃ

মিথঃ

লাল গোলাপ তৈরি হয়েছে আফ্রদিতির চোখের পানি আর তার প্রেমিক এডোনিসের রক্ত থেকে- গ্রীক পুরান

সত্যঃ

রাণী ক্লিওপেট্রার সাথে প্রেমিক এন্টোনিওর গোলাপশয্যার কথা…… নাই বা বললাম  

সাহিত্যঃ 

পাঁচ হচ্ছে ম্যাজিক্যাল নাম্বার। কোন মেয়েকে যদি কখনো পাঁচটা গোলাপ দেয়া যায় তাহলে সে জন্মের মত কেনা হয়ে যায়- হুমায়ূন আহমেদ

কথা না বাড়িয়ে শুরু করি-
    1. নীল গোলাপ: ছবিটি তুলেছেন Glady(স্ক্যান্ডিনেভিয়ান)
      blue rose 1556129231

 

  1. হলুদ গোলাপঃ ছবিটি তুলেছেন বিজনিয়াক(পোলস্কি)
    yellow rose 1556129257
  2. লাল গোলাপ: ছবিটি তুলেছেন ৫৩ বছর বয়সী ইংলিশ ভদ্রলোক Moshe Harosh
    red rose 1556129284
  3. সাদা গোলাপঃ ফটোগ্রাফার ভদ্রমহিলার নাম Peggy Choucair
    white rose 1556129314
  4. কালো গোলাপ: স্পেশাল এই ছবির ফটোগ্রাফার Jiří Rotrekl
    black rose 1556129022

কোন রঙের ফুলটি আপনার সবচেয়ে ভালো লেগেছে, নিচে কমেন্ট করে আমাদের জানান।

কদম ফুল

800px Kadam Flower1
কদম ফুলের ছবিটি তুলেছেনঃ বলরাম মহলদার
ছবির লাইসেন্সঃ Creative Commons 3.0
কদম্ব নিয়ে বাংলা ভাষায় অনেক গান, কবিতা লেখা হয়েছে। বর্ষাকালের এই ফুলটি বাংলাদেশের সব মানুষেরই প্রিয়। কাজী নজরুল ইসলাম এর ভাষায়-
“ কেয়া পাতার তরী ভাসায় কমল -ঝিলে
তরু-লতার শাখা সাজায় হরিৎ নীলে।
ছিটিয়ে মেঠো জল খেলে সে অবিরল
কাজলা দীঘির জলে ঢেউ তোলে
আনমনে ভাসায় পদ্ম-পাতার থালিকা।”
হুমায়ূন আহমেদ প্রেমিকাকে আহ্বান করেন তার নিজের ভাষায়,
“ যদি মন কাঁদে
তুমি চলে এসো, চলে এসো
এক বরষায় ”
তুমি আসলে তোমার খোপায় কদম ফুল গুজে দেব(আমাকে প্লানচেটে এসে হুমায়ূন আহমেদ বলে গেছেন)
উইকিপিডিয়ার তথ্য অনুযায়ী কদম গাছের ছাল জরের জন্য উপকারী। এর পাতার রস কৃমিনাশক হিসেবে কাজ করে। খেতে খুব একটা সুস্বাদু না, তাই অনেকেই খেতে পছন্দ করবেন না। 

পলাশ ফুল

 পলাশ
পলাশ গাছের পাতা শীতকালে ঝরে যায় এবং বসন্তকালে ফুল ফোটে। সংস্কৃত ভাষায় এই ফুলটিকে বলা হয় কিংশুক এবং মণিপুরি ভাষায় পাঙগোঙ। ছবিতে যে ফুলটি দেখছেন এর রঙ টুকটুকে লাল, এছাড়া পলাশ ফুল হলুদ এবং কমলা রঙেরও হয়।

আলোকচিত্রীঃ বেদাঙ্গাক

কৃতজ্ঞতা প্রকাশের বাধ্যবাধকতা আছে। ছবিটি  Creative CommonsAttribution-Share Alike 4.0 Internationalলাইসেন্স এর আওতাভুক্ত।

সারা বাংলাদেশেই গ্রামাঞ্চলে এই গাছ দেখা যায়। ভারত,শ্রীলংকা, মিয়ানমার, কম্বোডিয়া, মালয়েশিয়া প্রভৃতি দেশে এই গাছ হয়। কাজী নজরুল ইসলাম তার গানে লিখেছেন-

হলুদ গাঁদার ফুল,

রাঙা পলাশ ফুল
এনে দে এনে দে

নইলেবাঁধব না, বাঁধব না চুল…

কফ এবং গাঁটের ব্যাথা, অর্শ প্রভৃতি রোগের উপশমের জন্য এই ফুল ব্যবহার করা হয়।

গাঁদা ফুল

গাঁদা ফুল

ছবিতে আপনারা গাঁদা ফুল দেখতে পাচ্ছেন। গাঁদা ফুলের চাষ করা হয় শীতকালে। বিয়ে, জন্মদিন এবং বিভিন্ন অনুষ্ঠানে এই ফুল দিয়ে সাজানো হয়।

আলোকচিত্রীঃ বিজয় চৌরাশিয়া(ভারত)

কৃতজ্ঞতা প্রকাশের বাধ্যবাধকতা আছে 
ছবিটি Creative CommonsAttribution-Share Alike 4.0 International লাইসেন্সের আওতাভুক্ত (কেউ ছবিটি ব্যবহার করলে লাইসেন্সের লিংকও দিতে হবে)।
আরো দেখুন-
(Visited 137 times, 1 visits today)