মহাভারত, পঞ্চপান্ডব, মহাকাব্য, ইতিহাস, যুদ্ধ, যোদ্ধা

মহাভারতের পঞ্চপান্ডব

0

মহাভারতের পঞ্চপান্ডব ছিলেন পাণ্ডুর পাঁচ পুত্র- যুধিষ্ঠির, ভীম, অর্জুন, নকুল এবং সহদেব। মুনি দুর্বাসার দেয়া বর কাজে লাগিয়ে কুন্তি ও মাদ্রী সন্তান লাভ করেছিলেন।

পাণ্ডুর ক্ষেত্রজ পুত্র ছিলেন তারা পাঁচজন, যুদ্ধক্ষেত্রে তাদের প্রতিপক্ষ ছিল তাদেরই পিতৃকূলজাত ভাই, ১০০ জন কৌরব। তারা শেষ পর্যন্ত যুদ্ধে জয়লাভ করেছিলেন।

কুরু বংশ তালিকা

রাজা কুরু ছিলেন সংবরণ এবং তপতীর পুত্র। তার বংশধরদের কৌরব বলা হয়। আসলে সবার বংশই ছিল কুরু বংশ, তাই সবাইকেই কৌরব বলা যায়। তবে, দুর্যোধন এবং তাদের ১০০ ভাইকেই কৌরব বলা হয়-

১০০ জনের নামের তালিকা

পঞ্চপান্ডবের বাবার নাম পান্ডু তাই তাদেরকে পান্ডব বলা হয়। দ্রৌপদী ছিলেন পাঁচ ভাইয়ের এক স্ত্রী। পঞ্চপান্ডব শিক্ষালাভ করেছিলেন কৃপা এবং দ্রোণাচার্যের কাছ থেকে।

চলুন তাদের সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক-

যুধিষ্ঠির

ধর্মপুত্র যুধিষ্ঠির জীবনে একটি মিথ্যা বলেছিলেন, সেটিও নিশ্চিতভাবে মিথ্যা বলা যায় না। কারণ- অশ্বথামা হত, ইতি গজ(আস্তে) বলেছিলেন যখন তখন বাদ্যের বাজনায় সেটি শোনা যায় নি। কোন অন্যায় না করার ব্যাপারে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ যুধিষ্ঠির

ভীম

বায়ুপুত্র ভীম ছিলেন সবচেয়ে শক্তিশালী। তার অসীম শক্তি আর, বিশাল দেহের কারণে অনেকেই তাকে বোকা হিসেবে উপস্থাপন করতে চান, মহাভারত সেরকম কিছু বলে কি না জানি না। তবে, কর্ণ এবং ভীষ্মের মতো তীরন্দাজের সাথে যুদ্ধেও ভীম তার দক্ষতার সাক্ষর রেখেছিলেন

অর্জুন

ইন্দ্রপুত্র অর্জুন ছিলেন লক্ষ্যে অটল, অবিচল। অর্জুনকে কৃষ্ণের দেয়া উপদেশবাণীই হিন্দু ধর্মের পবিত্র ধর্মগ্রন্থ গীতা। কৃষ্ণসারথি অর্জুন ছিলেন দ্রোণাচার্যের শ্রেষ্ঠ ছাত্র আর, মহাভারতের উজ্জলতম চরিত্রগুলোর একটি।

পড়ুন- হিন্দু ধর্ম, ধর্ম গ্রন্থ, ইতিহাস এবং অন্যান্য

নকুল

অশ্বিনীপুত্র নকুল ছিলেন সবচেয়ে সুদর্শন। তিনি ছিলেন সেরা ঘোড়সওয়ার, আয়ুর্বেদ বিশেষজ্ঞ এবং অসি চালনায় পারদর্শী। নকুল বীরত্বের সাথে কুরুক্ষেত্রে যুদ্ধ করেছিলেন এবং জয়লাভ করেছিলেন। পরে তিনি মাদ্রের রাজা নিযুক্ত হন।

সহদেব

সহদেব ছিলেন লাজুক ও বিনয়ী। অসি ও রথ চালনায় তার দক্ষতা ছিল, সহদেবের আরেক নাম ছিল মহারথী। ভগবত পুরাণ অনুসারে তিনি কৃষ্ণকে উপদেশ দিয়েছিলেন কিভাবে যুদ্ধ থামানো যায়। তার সমাধানটি ছিল, কৃষ্ণকে বেধে রেখে, পান্ডবদের এবং দুর্যোধনকে বনে পাঠিয়ে কর্ণকে রাজা করে দেয়া

হস্তিনাপুরের রাজা ছিলেন পান্ডু। অভিশাপজনিত কারণে তিনি স্বাভাবিক নিয়মে পুত্রলাভ করতে পারছিলেন না। তখন দেবতাদের বরে তার স্ত্রী কুন্তি ও মাদ্রী এই পাঁচটি সন্তান লাভ করে। এরা সবাই পাণ্ডুর ক্ষেত্রজ পুত্র।

0
(Visited 9 times, 1 visits today)

admin

Author: admin

বিভিন্ন বিষয় নিয়ে লেখার চেষ্টা করছি

Related Posts

আসসালামু আলাইকুম

‘আসসালামু আলাইকুম’- সম্মানসূচক সম্বোধন নয়!

মুসলিমরা সম্বোধনের ক্ষেত্রে আসসালামু আলাইকুম বলে থাকে। ইহুদি এবং খ্রিস্টানদের মাঝেও শ্যালম(হিব্রু ভাষায় সালামের সমার্থক শব্দের) প্রচলন আছে। এই লেখাটিতে

বই রিভিউ: হাদিসের নামে জালিয়াতি

পবিত্র কুরআনের পরে ইসলামি জ্ঞানের দ্বিতীয় ও বিশুদ্ধতম উৎস হলো হাদিস।আমাদের সমাজে বহু হাদিস প্রচলিত আছে।কিন্তু কেউ একটি বাণী শুনিয়ে
আল্লাহ এক জন

খ্রিস্টান সন্ন্যাসীদের প্রতি নবীজির অঙ্গীকারনামা

খ্রিস্টান সন্যাসীদের প্রতি নবীজির অঙ্গীকারনামা একটি ঐতিহাসিক দলিল হিসেবে সমাদৃত। পৃথিবীর প্রাচীনতম গীর্জাগুলোর মধ্যে একটি হচ্ছে সেইন্ট ক্যাথরিনের গীর্জা। সিনাই

Leave a Reply