চমকপ্রদ তথ্য

ঘোড়ার ডাক কে কি বলে? শেরশাহ কি করেছেন

ঘোড়ার ডাককে এককথায় বলে হ্রেষা। ঘোড়ার ডাক প্রচলন করেন শেরশাহ। শেরশাহ প্রচলন করার আগে কি ঘোড়া ডাকতো না? উত্তরটা হচ্ছে- তখনও ঘোড়া ডাকতো, তবে তিনি যে ডাক প্রচলন করেছিলেন সেটি ডাকাডাকির ডাক নয়, ডাকব্যবস্থার ডাক।

শেরশাহ চিঠি পাঠানোর জন্য ডাকব্যবস্থা তৈরি করেছিলেন, সেই ব্যবস্থায় চিঠি পৌছানোর বাহন ছিল ঘোড়া। এইজন্য সেই ডাকব্যবস্থাকে ঘোড়ার ডাক বলা হয়। হ্রেষাধ্বনি শুনতে কিন্তু বেশ লাগে। যাইহোক শেরশাহ যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে তার সময়ে অনেক ভূমিকা রেখেছিলেন

  • তার সময়ে তৈরি হয়েছিল গ্র্যান্ড ট্রাঙ্ক রোড, এটি বিস্তৃত ছিল সোনারগা থেকে সিন্ধু প্রদেশ পর্যন্ত
  • রাস্তার দু পাশে গাছ এবং পথচারিদের বিশ্রামের জন্য তৈরি করেছিলেন সরাইখানা
  • যোগাযোগের জন্য তখন Facebook ছিল না, তাই ঘোড়ার পিঠে চড়ে চিঠি আদান-প্রদানের ডাক ব্যবস্থা প্রবর্তন করেছিলেন

 

কেউ কেউ শেরশাহকে সব মোঘল সম্রাটদের চেয়ে শ্রেষ্ঠ বলেছেন। মুঘল সম্রাট হুমায়ুনের শাসনামলে ১৫৩৭ সালে তিনি বাংলা জয় করে নিজেকে সম্রাট ঘোষণার মাধ্যমে সুরি সাম্রাজ্যের প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।  ১৫৪৫ সালে এক যুদ্ধে রাজপুতদের হাতে তার মৃত্যু হয়। হুমায়ুন আবার মোঘল সাম্রাজ্য পুনঃ প্রতিষ্ঠা করেন।

সময় থাকলে পড়তে পারেন-