ইউটিউব চ্যানেলের নাম নির্বাচন

ইউটিউব চ্যানেলের নাম নির্বাচন

ইউটিউব চ্যানেলের ভালো নাম নির্বাচনের ক্ষেত্রে খেয়াল রাখতে হবে নামটি যেন ইউনিক এবং সুন্দর হয়। শিক্ষামূলক বা, ইসলামিক বা, অন্য যেকোন ধরণের চ্যানেলের ক্ষেত্রে এমন নাম নির্বাচন করতে হবে যাতে বিষয়টি ফুটে ওঠে।

অনেক সময় দেখা যায় ভুল নামের কারণে চ্যানেলের প্রতি মানুষের আগ্রহ থাকে না। এই লেখাটি পুরোটা পড়ুন, কাজে লাগবে। তাই, যারা কোন ওয়েবসাইট, চ্যানেল বা, যেকোন ব্রান্ডের নাম নিয়ে গবেষণা করে তারপর নাম ঠিক করেন, তাদের ব্রান্ডের জনপ্রিয়তার ক্ষেত্রে এটি প্রভাবক হিসেবে কাজ করে। 

আপনার মনে হয় এর আগে আরো দুটি বিষয় জানা দরকার-

কিলার টিপসঃ ইউটিউব চ্যানেলের নাম কি দেওয়া যায়?

অনেকে ভেবেই পান না নাম কি দেয়া যায়। আমি চেষ্টা করবো এই লেখার মাধ্যমে সেই সম্পর্কে একটি ধারণা দিতে। কিছু ব্যাপার আছে যা যেকোন ব্রান্ড এমনকি রাস্তার দোকানের ক্ষেত্রেও প্রয়োগ করলে সুফল পাবেন। চলুন এক নজরে দেখে নেই-

১. নামটি হতে হবে সবার চেয়ে আলাদা, বড় ব্রান্ডের নাম নকল করলে সফলতা পাবেন না

২. পড়লেই যেন বোঝা যায় এটি কিসের নাম, Vlog নাম দিয়ে ফানি ভিডিওর চ্যানেল বানাবেন না

৩. যত ছোট নাম হয়, ততই ভালো। বড় নাম দিয়ে সার্চ ট্রাফিকের চিন্তার দরকার নাই, এমনিতেই পাবেন।

৪. সহজে মনে রাখা যায় এমন নাম দিতে হবে, খটমট নাম দিয়ে কোন লাভ নেই

৫. সংখ্যা এড়িয়ে চলবেন(আমি Brian Dean এর পরামর্শ অনুযায়ী বললাম), তবে অটোজেনারেটেড মনে না হলে সংখ্যাও দিতে পারেন

 

এই বিষয়গুলোকে Rule of thumb(প্রচলিত রীতি) হিসেবে নিতে পারেন। যুগ যুগ ধরে নামকরণের ক্ষেত্রে এই বিষয়গুলোই সবচেয়ে সফল হিসেবে প্রমাণিত। অন্য কোন ব্লগের লেখা পড়লেও এই বিষয়গুলো পাবেন। 

পড়ুন- গেম খেলে টাকা আয়

চ্যানলের নাম নির্বাচনের ক্ষেত্রে অন্যদের চেয়ে এগিয়ে থাকুন

ডোমেইন খুজুনঃ আপনার চ্যানেল নিয়ে যদি আপনি আশাবাদি হোন যে ভবিষ্যতে অনেক বড় ব্রান্ডে পরিণত হবে, তাহলে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করার প্রয়োজন বা, ইচ্ছা হতে পারে। তাই আগেই খুজে দেখুন ডোমেইন(ওয়েবসাইটের ঠিকানা) পাওয়া যায় কি না।

ফেসবুকে দেখুনঃ ভবিষ্যতে আপনার চ্যানেলের জন্য সুন্দর একটি ফেসবুক পেজ লাগবে। তাই, ফেসবুকে এই নামে অন্য কোন জনপ্রিয় পেজ আছে কি না দেখুন। না থাকলে আপনি এই নাম নিতে পারেন।

টুইটারে দেখুনঃ আপনার ব্রান্ডকে নিশ্চয়ই টুইটারেও পরিচিত করতে চাইবেন। তাই টুইটারেও একই নামে একটি একাউন্ট তৈরি করুন। তাঁর আগে দেখে নিন ঐ নাম পাওয়া যাচ্ছে কি না।

ওয়েবসাইট থেকে অটো তৈরি করা নাম কি ভালো?

অনেকেই পছন্দ করে বিষয় লিখে বিভিন্ন অনলাইন সাইট থেকে নাম Autogenerate করে নিতে। এটি আসলেই কি আপনার উপকার করবে? আমার মনে হয় না। এই লেখাটি যারা পড়ছেন, আমার ধারণা তারা বাংলা কনটেন্ট তৈরি করবেন।

ঐসব সাইটে দেয়া হয় ইংরেজী নাম। ইংরেজী নাম আপনার বাংলা কনটেন্টের চ্যানেলের জন্যও দিতে পারেন। তবে, আমার মনে হয় আপনার জন্য ভালো হবে এমন নাম দেয়া যেটিতে বাঙালিরা আগ্রহী হয়। সেটি যেকোন ভাষার নাম হতে পারে।

নিজে বিশ্লেষণ করুনঃ ওয়েবসাইটের উপর ভরসা না করে নিজেই নিজের বিষয়ের সাথে মেলে এমন নাম নিয়ে গবেষণা করুন। সবচেয়ে ভালো নাম আপনিই খুজতে পারবেন, অন্য কেউ নয়।

যা যা বললাম- ইউনিক, ছোট, সুন্দর, বিষয়ের সাথে প্রাসঙ্গিক এমন একটি নাম বেছে নিন। উদাহরণ হিসেবে বলতে পারি- Mangosquad, ChanneliTV ইত্যাদি। এগুলো নিজেদেরকে রিপ্রেজেন্ট করে।

নিজের নাম কেন নয়?

অবশ্যই নিজের নাম দিতে পারেন। সেক্ষেত্রে নিজেকে ব্রান্ড হিসেবে ব্যবহার করতে হবে। যেমনঃ Shahriar Nazim Joy তাঁর নিজের নামে পরিচিত। আযহারি সাহেবের চ্যানেল নিজের নামে খুললে এমনিতেই লাখ লাখ সাবস্ক্রাইবার পেয়ে যান। আপনাকে কি এমন অনেকে চেনে?

যদি না চেনে তাহলে নিজের নাম ব্যবহার না করে কনটেন্টকে প্রমোট করুন। নিজেকে প্রমোট করতে আমি নিষেধ করছি না, তবে সেক্ষেত্রে একটু বেশী ধৈর্য্য থাকা দরকার। আগে নিজেকে চেনাতে হবে।

ভ্রমণের চ্যানেল হলে সেই নামে যদি Travel, ভ্রমণ, ঘোরাঘুরি এই ধরণের শব্দ থাকে তাহলে লোকে বেশী আকৃষ্ট হয়। অন্যথায়, বুঝতেই পারে না যে এটি কিসের চ্যানেল।

বাড়তি কিছু জানতে চাইলে মন্তব্য করতে পারেন, নিচের লেখাটির মধ্যে অনেক রকম প্রশ্নের উত্তর আছে। আপনার ইউটিউব বিষয়ে জ্ঞান না থাকলে বা, কম থাকলে লেখাটি থেকে শিখতে পারবেন।

ইউটিউব চ্যানেল খোলার নিয়ম দেখুন।

রান্নার চ্যানেলের নাম

আপনি যদি গুগলে বা, ইউটিউবে সার্চ দেন তাহলে অনেকগুলো নাম খুঁজে পাবেন। সেগুলোর মাঝে যেকোন একটি নাম দিয়েই আপনি সফলতা পেতে পারেন। কারণ, আপনার সফলতা মূলত নির্ভর করবে কনটেন্টের মাণ আর, আপনার স্ট্র্যাটেজি এর উপর।

কিছু নামের কথা বলি-

  • Cookie Cooking
  • Cooking Picks
  • Camera Cooking
  • Cooking Choice ইত্যাদি।

এর কোনটাই হয়তো আপনার চ্যানলকে শতভাগ রিপ্রেজেন্ট করছে না। তাই, আপনাকেই ঠিক করতে হবে এই চ্যানলের মাধ্যমে আপনি কি অর্জন করতে চান। এবং সেটি কিভাবে অর্জন করতে চান। এরপর সেই অনুযায়ী নাম ঠিক করতে হবে। যেমনঃ কেকা ফেরদৌসি যদি ঠিক করেন নুডুলসের ১০০১ টি রেসিপি তৈরি করবেন। তাহলে তিনি নাম দেবেন- নুডুলস- ১০০০১ বা, এরকম কিছু একটা।

একই কথা ইসলামিক চ্যানেলের জন্যও প্রযোজ্য। আপনি ইসলামিক গানের ভিডিও তৈরি করলে সেই অনুযায়ী নাম দিতে হবে। আবার যদি ডকুমেন্টরি ভিডিও বা, গবেষণামূলক কোন ভিডিও তৈরি করতে চান সেই অনুযায়ী নাম দিবেন। এবং কখনোই নিশ থেকে সরে আসা যাবে না। ইউটিউব চ্যানেলের নাম নির্বাচন নিশ্চয়ই দরকারি, কিন্তু প্রধান ভূমিকা পালন করে কনটেন্টের মাণ।

 

আরো পড়ুন-

(Visited 403 times, 1 visits today)

এডমিন

Author: এডমিন

বিভিন্ন বিষয়ে প্রবন্ধ লেখার চেষ্টা করছি

আরো লেখা খুঁজুন

Related Posts

টুইটার একাউন্ট খোলার নিয়ম

কিভাবে টুইটার একাউন্ট খুলতে হয়?

আপনি চাইলে আলাদা ইমেইল এড্রেস ব্যবহার করে একাধিক টুইটার একাউন্ট খুলতে পারবেন। কিভাবে খুলতে হয় সেটি ধাপে ধাপে বর্ণনা করবো।
বাংলাদেশের সেরা হোস্টিং কোম্পানি

বাংলাদেশের সেরা হোস্টিং কোম্পানি

বাংলাদেশের হোস্টিং কোম্পানি নিয়ে কথা বলছি এবং তাদের মাঝে সেরা প্রভাইডারকে খুজে বের করার চেষ্টা করছি কারণ, এইসব সাইটে বিকাশ
টরেন্ট সাইট

টরেন্ট সাইট কিভাবে কাজ করে?

টরেন্ট সাইট নিয়ে বলার আগে প্রথমেই বলে নেই টরেন্ট কি এরপর বলব টরেন্ট কিভাবে কাজ করে। আমরা যখন কোন কিছু

Leave a Reply