বাংলার ভৌগোলিক বৈশিষ্ট্য

0

ভূ-প্রকৃতিক গঠন বৈশিষ্ট্যের আলোকে বাংলার পাঁচটি ভাগ পাওয়া যায় :উত্তর বাংলার পাললিক সমভূমি ;ব্রাহ্মপুত্র-মেঘনা অন্তর্বর্তী ভূভাগ ;ভাগীরথী-মেঘনা অন্তর্বর্তী ব-দ্বীপ ;চট্টগ্রামের অনুচ্ছ পার্বত্য এলাকা এবং বর্ধমানা জায়গায় অনুচ্চ পার্বত্য এলাকা।
বাংলার ভূ-প্রকৃতিতে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নদীর। বাংলার বিস্তীর্ন ভূভাগ সবটাই ভূতত্ত্বের আলোকে নবসৃষ্ট। পশ্চিম,উত্তর ও পূর্বদিকের সীমান্তবর্তী পর্বতমালা ছাড়া বাকি সবটাই সমতলভূমি এবং এই সমগ্র ভূ-ভাগই নদীমালার ব-দ্বীপ কিংবা ‘ডেল্টা’ বলে অনেকেই মত প্রকাশ করেছেন। ওল্ডহাম পশ্চিমে হুগলি নদী থেকে পূর্বে ☁ মেঘনা নদী পর্যন্ত বিস্তীর্ণ ভূ-ভাগকেই গঙ্গা – ব্রাহ্মপুত্র নদীমালার ‘ডেল্টা’ বলে উল্লেখ করেছেন। উত্তর – পূর্ব ও পূর্বে অবস্থিত সিলেট-ত্রিপুরা-চট্টগ্রাম পর্বতমালা ‘টারশিয়ারী’ পাহাড়। উত্তরে পদ্মা, পশ্চিমে ভাগীরথী, পূর্বে ☁ মেঘনা এবং দক্ষিণে সাগর পর্যন্ত বিস্তৃত ভূ-ভাগ মূলত প্লাবন সমভুমি এবং গঙ্গা – ব্রাহ্মপুত্র দ্বারা গঠিত ব-দ্বীপ কিংবা ‘ডেল্টা’।


56
বিজ্ঞাপনঃ মিসির আলি সমগ্র ১: ১০০০ টাকা(১৪% ছাড়ে ৮৬০)

0

নিচের লেখাগুলো আপনার পছন্দ হতে পারে

শুধু তুমি

তোমার মত কেহ নাই তাইতো আমি তোমায় চাই তুমি আমার আপনজনা, ভাই, ভাই, ভাই।   যে জন তার আপনজনা ভালবাসে

মৃত্যু (৯) (প্রেমের কবিতা)

আমি একজনকে ভালবাসি।একদিন বললাম, এত বেশি ভালবেসোনা এত বেশি ভালবাসলে আমি মরে যাব। বলে তুমি মরে যাও আমি তো সেটাই

কাল কটি

কাল কোটওয়ালাদের কেনা ভালবাসে?  কাল কোটওয়ালাদের সবাই ভালবাসে।আমি একদিন এক কালকোটওয়ালীকে জিজ্ঞেস করেছিলাম, এই তুমি কেমন আছ? বলে, কেন ভাল

আল্লাহ (১৭)

আল্লাহ আল্লাহ কর ভাই আল্লাহ ছাড়া উপায় নাই না গাহিলে কি হবে? জাহান্নামে হবে ঠাঁই যাই,সেই কথাটি বলে যাই।  

Leave a Reply