বাংলা নিউজপেপার

সেরা ১০ টি বাংলা পত্রিকা- ভিজিট করুন

সেরা বাংলা পত্রিকা বলতে আমরা অনলাইনে সবচেয়ে জনপ্রিয় পত্রিকা বুঝাচ্ছি। আপনি অন্য আরো অনেক রকম বৈশিষ্ট্যের ভিত্তিতে এই তালিকা তৈরি করতে পারেন। আমরা পরিসংখ্যানের জন্য নির্ভর করেছি বিশ্বস্ত ওয়েব ট্রাফিক এনালাইসিস কোম্পানি Alexa এর উপর। অনেকগুলো নামই আপনি চোখ বুঝে বলে দিতে পারবেন, দু একটি নাম দেখে অবাকও হতে পারেন। তবে, Amazon এর প্রডাক্ট এলেক্সা

ঘূর্ণিঝড়ের নামের তালিকা

২০২১ সালের ঘূর্ণিঝড়ের নামের তালিকা

আমরা আইলা, নার্গিস, রোয়ানু ইত্যাদি ঝড়ের নামের সাথে পরিচিত। নতুন আরেকটি ঘূর্ণিঝড় এসেছিল যার নাম ফণি- এটির নামকরণ বাংলাদেশের করা। আজকে চলুন জানার চেষ্টা করি ঘূর্ণিঝড়গুলোর নামকরণ কিভাবে করা হয় এবং কোথায় এই নামগুলো আমরা পেতে পারি। বিশ্ব আবহাওয়া কেন্দ্র বা, World Meteorological Organization এর নামের তালিকা আপনাদের দেখাবো। ঘূর্ণিঝড় নিভারঃ ২৪ নভেম্বর ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের

সংসদ ভবন

মন্ত্রী, উপমন্ত্রী এবং প্রতিমন্ত্রী কাকে বলে?

মন্ত্রী, উপমন্ত্রী এবং প্রতিমন্ত্রী এই তিনটি শব্দ বাংলাদেশ সরকার নিয়ে যেকোন আলোচনায় বারবার উচ্চারিত হয়। এদের সবার পদমর্জাদা সমান নয়, কিন্তু এরা প্রত্যেকেই গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন। এই লেখার মাধ্য এই তিনটি পদ সম্পর্কে একটি সাধারণ ধারণা দেয়ার চেষ্টা করবো। এছাড়া দপ্তরবিহীন মন্ত্রী এবং বর্তমান মন্ত্রীসভার সদস্যদের সম্পর্কেও ধারণা পাবেন। প্রথমে মন্ত্রীসভার সদস্যদের দেখে নিন-

নেপালের ইতিহাস

নেপালের ইতিহাস ও অন্যান্য

নেপালের রাজধানীর নাম কাঠমান্ডু।  ‘জননী জন্মভূমি স্বর্গদপী গরীয়ষী’- এটি নেপালের নীতিবাক্য। রাজতন্ত্র থেকে নেপাল এখন যুক্তরাষ্ট্রীয় গণতান্ত্রিক নেপাল। রাষ্ট্রভাষা মৈথিলি এবং নেপালি। একমাত্র এই দেশের পতাকাই ত্রিভূজ আকৃতির। রাষ্ট্রপতি বিদ্যাভান্ডারি এবং প্রধানমন্ত্রী কে পি ওলি। উপরের ছবিতে কাঠমান্ডুর দরবার স্কয়ার দেখতে পাচ্ছেন। চারিদিকে হিমালয় বেষ্টিত এই শহরটিই নেপালের সবচেয়ে বড় শহর। এখানকার মানুষেরা কথা বলে

ঐতিহাসিক স্থান

যে দশটি ঐতিহাসিক স্থান সারা পৃথিবীতে বিখ্যাত

সেরা ঐতিহাসিক স্থান খুজতে আমরা কিছু অনলাইন ব্লগ এবং গুগল সার্চের আশ্রয় নিয়েছি। একথা বলার অপেক্ষা রাখে না যে, পৃথিবিতে প্রচুর আকর্ষণীয় এবং ঐতিহাসিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ জায়গা রয়েছে। আমাদের এই তালিকায় হয়তো আপনার অজানা কোন স্থান থাকতে পারে, আবার আপনার পছন্দের কোন জায়গা বাদও পড়তে পারে। ফিচার্ড ইমেজ হিসবে প্রথমে যে ছবিটি দেখছেন সেটি ভিয়েতনামের একটি

নাস্তিক্যবাদ

নাস্তিকতাবাদ বা, নাস্তিক্যবাদ আসলে কেমন?

নাস্তিকতাবাদ বলতে আমরা এমন মতবাদকে বুঝি যেখানে ঈশ্বরের বা, কোন সৃষ্টিকর্তার অস্তিত্ব স্বীকার করা হয় না। এর বাইরে আরো কতগুলো মত থাকতে পারে যেগুলো আমরা বাংলা ভাষায় সাধারণত ব্যবহার করি না। অনেক সময় অবিশ্বাসী বুঝাতেও এই শব্দটি ব্যবহার করা হয়, যেমন বেদে অবিশ্বাসীকে নাস্তিক বলা হয়। এমনকি ভূতে অবিশ্বাসীকেও নাস্তিক বলা হয়। ইসলাম ধর্মে অবিশ্বাসী,

জাপানের শিন্টো ধর্ম

জাপানের শিন্টো ও জর্জিয়ার ধর্ম

শিন্টো ধর্ম বহুঈশ্বরবাদী একটি ধর্ম। শিন্টো(বা, শিন্তৌ) শব্দের অর্থ দেবতার পথ। এই ধর্মে সৃষ্টিকর্তাকে বলা হয় কামি। অসংখ্য স্রষ্টার অস্তিত্ব আছে বলে এই ধর্মের অনুসারীদের বিশ্বাস। যিশু খ্রিস্টের জন্মের ৬৬০ বছর আগেও এই মতবাদের অস্তিত্ব ছিল বলে প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে। জাপানিরা প্রধানত আচারসর্বস্ব এই মতবাদই অনুসরণ করে। এই লেখাটিতে আমি জাপানের শিন্তৌ ধর্ম এর পাশাপাশি

মালাউন, মালু শব্দের অর্থ কি

মালাউন, মালু, ডান্ডি, যবন, হানাদার শব্দের অর্থ কি?

‘মালাউন’ শব্দটি বাঙ্গালি হিন্দুদের ক্ষেত্রে ঘৃণাসূচক শব্দ হিসেবে প্রয়োগ করতে দেখা যায়। এটি ইসলাম ধর্ম অনুযায়ী একটি অপরাধ কর্ম(কেন সেই ব্যাখ্যাও দেবো)। অদ্ভুত ব্যাপার হচ্ছে এই শব্দটি নিয়ে এই উপমহাদেশে সবচেয়ে বেশী চর্চা হয়, যদিও এটি আরবি শব্দ।  প্রথমে জেনে নেবো এই শব্দটি প্রকৃত অর্থ কি। আভিধানিক এবং প্রায়োগিক দুটি অর্থ আমাদের মনে কি দুই

সিলেটি ভাষা

সিলেটি ভাষা স্বতন্ত্র, নাকি উপভাষা

সিলেটি ভাষা খুব সম্ভবত বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম জনগোষ্ঠীর ভাষা। উইকিপিডিয়ায় আর্টিকেল দেখতে গিয়ে অবাক হলাম- ওদের নাকি নিজস্ব বর্ণমালাও আছে। বাংলাদেশ ছাড়াও ভারতের আসাম, ত্রিপুরা, মণিপুর, মেঘালয় এবং যুক্তরাজ্যের কিছু অঞ্চলের মানুষেরা এই ভাষায় কথা বলে। বাংলা ট্রিবিউনে একটা আর্টিকেল পড়লাম- ব্রিটেনের কিছু কিছু স্কুলে মাতৃভাষা হিসেবে বাংলার পাশাপাশি সিলেটি ভাষাও শেখানো  হচ্ছে। “তুমি কেমন

বাংলা নববর্ষ- একতারা

বাংলা নববর্ষ প্রচলন করেন কে? আকবর/বিক্রম

বাংলা নববর্ষ প্রচলন করেন কে? এই প্রশ্নের উত্তর আমরা এই লেখার মাধ্যমে খোজার চেষ্টা করব। বাংলা বর্ষপঞ্জি অনুসারে বছরের প্রথম দিনকে বলা হয় পহেলা বৈশাখ। বছরের ১২ মাস হচ্ছে- বৈশাখ, জৈষ্ঠ্য, আষাড়, শ্রাবণ, ভাদ্র, আশ্বিন, কার্তিক, অগ্রহায়ন, পৌষ, মাঘ, ফাল্গুন ও চৈত্র। এর শুরুর ইতিহাস নিয়ে বিভ্রান্তির ব্যাপারটা অনেকেরই অজানা।আজকে সেটা নিয়ে কিছু লিখতে যাচ্ছি।