ব্লগ থেকে টাকা আয়

ব্লগার থেকে টাকা আয় করার উপায়

1

ব্লগার বা, গুগলের ব্লগস্পট থেকে টাকা আয় করার অনেক রকম উপায় বা, পদ্ধতি আছে। ফ্রি ওয়ার্ডপ্রেস বা, ফ্রি যেকোন সাইট থেকেও আয় করা যায়। এজন্য প্রথমেই দরকার অর্গানিক ভিজিটর। আপনার ওয়েবসাইট যে রকমই হোক না কেন, সেখানে যদি এমন ভিজিটর থাকে যারা সার্চ করে আপনার সাইট ভিজিট করছে। তাহলে, আপনি সেখান থেকে আয় করতে পারবেন।

গুগল এডসেন্স এপ্রুভাল পাওয়া কতটা জরুরি?

মোটেও জরুরি না, গুগল এবং অন্যান্য এড নেটওয়ার্ক এবং এফিলিয়েট নেটওয়ার্ক আপনার জন্য বসে আছে। আপনার সাইটে যখন একটি নির্দিষ্ট ধরণের ভিজিটর থাকবে, তখন আপনি অনেকভাবে সেই সাইটকে মনিটাইজ করতে পারবেন। অনৈতিক কিছু না করলে এডসেন্স এবং এফিলিয়েট নেটওয়ার্ক সাথে সাথেই এপ্রুভ করবে।

প্রসঙ্গত বলে রাখি, ব্লগিং করে যারা আয় করেন, তারা সবচেয়ে বেশী আয় করেন এফিলিয়েট থেকে। এছাড়া ড্রপশিপিং করা যায়, এডসেন্স ছাড়াও অনেক এড নেটওয়ার্ক আছে যেগুলোর এড দেখিয়ে আয় করা যায়(ইউরোপ আমেরিকার ভিজিটর থাকলে ভালো হয়)। দেখতে পারেন-এডসেন্স এর বিকল্প , বাংলা সাইটে অবশ্য এডসেন্সই এখন পর্যন্ত সেরা এড নেটওয়ার্ক, এডসেন্স এর চেয়েও ভালো কিছু আছে তবে সেটি এড নেটওয়ার্ক না।

ব্লগার থেকে টাকা আয় করার ৫ টি উপায়

গুগলের ব্লগস্পটে যদি ফ্রিতে একটি সাইট তৈরি করেন এবং সেখানে কাস্টম টেমপ্লেট এপ্লাই করেন বা, যেকোন টেমপ্লেট এপ্লাই করেন এবং যেকোন ধরণের ডোমেইন ব্যবহার করেন না কেন, সেটি আসলে কোন সমস্যাই না। মূল ব্যাপার হচ্ছে, আপনার ব্লগের কন্টেন্ট পাঠকদের উপকারে আসবে কি না, অনলাইনে যা আছে, এর বাইরে নতুন কিছু দিতে পারছেন কি না।

যদি আপনার ব্লগে ভালো কনটেন্ট থাকে তাহলে ভিজিটর আসবে, এবং সার্চ থেকেও ভিজিট হবে। সাইট যত সাদামাটা হয়, ততোই ভালো, এগুলোতে স্পিড বেশী থাকে এবং সব ডিভাইসে ঠিক মতো দেখা যায়। সবচেয়ে বেশী ফোকাস করা উচিত কন্টেন্টের মাণের দিকে, সাইটের ডিজাইন এবং কাস্টম ডোমেইনে না(এগুলো ভালো হলে সুবিধা আছে, তবে মূল ব্যাপারটা আগে ঠিক করতে হবে)।

চলুন উপায়গুলো দেখে নেই(ভিজিটর থাকলেই এই পদ্ধতি কাজে লাগবে, রেকমেন্ড করছি– দৈনিক ২০০+ ইউনিক ভিজিটর থাকলে শুরু করতে পারেন)-

(এর আগে ব্লগ তৈরি করার নিয়ম দেখে নিন, জানা থাকলে পড়তে থাকুন)

১. এফিলিয়েট মার্কেটিং

যেকোন একটি নিশে যদি আপনার ব্লগ থাকে এবং সেই নিশের ভিজিটর থাকে তাহলে এমাজনে একাউন্ট খুলে সেই নিশের এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে পারেন। এজন্য আপনাকে এমনভাবে আর্টিকেল লিখতে হবে যাতে পাঠকেরা লিংক থেকে পণ্য কিনতে আগ্রহী হয়। এজন্য Charlie Munger এর ২৫ টি Cognitive Bias দেখে নিতে পারেন, কাজে লাগবে।

২. ড্রপশিপিং করে

অনেক জিনিস আছে যেগুলো মানুষ অনলাইনে কেনে না, সেগুলো সরাসরি আপনার লিংক থেকে কিনবে না। দেখে শুনে শো রুম থেকে কিনবে। যেমনঃ মোটরসাইকেল বা, ফ্রিজ সহজে কেউ অনলাইনে অর্ডার করে না। এই ধরনের কোম্পানির সাথে চুক্তি করে। আপনার সাইটের মাধ্যমে গুগল ফর্মে আগ্রহী লোকদের তথ্য যোগাড় করে কোম্পানিকে দিবেন(আগে থেকে কোম্পানির সাথে চুক্তি করে রাখবেন) তারা আপনাকে টাকা দেবে। বা, আপনিই অর্ডার নিয়ে অন্যদের প্রডাক্ত বিক্রি করে কমিশন নিতে পারেন।

৩. অনলাইন কোর্স বিক্রি করে

আপনার যদি বিশেষ কোন দক্ষতা থাকে বা, বিশেষ কোন বিষয়ে পড়াশোনা করে থাকেন, তাহলে এটা করতে পারেন। মনে করুন, আপনি পালি ভাষা জানেন। অনেক লোক আছে শিখতে চায়, কিন্তু অনলাইনে সেরকম কোন রিসোর্স নেই। আপনি একটি পুরো কোর্স তৈরি করে সেটি বিক্রি করতে পারেন। গুগল ফর্মে তথ্য আর,  বিকাশ/রকেটে টাকা নিয়ে জুম মিটিং এ ক্লাস নিতে পারেন। ইউটিউবে আপলোড করার চেয়ে বেশী টাকা আয় করতে পারবেন। আপনার ব্লগ আপনাকে সাহায্য করবে ঐ সব আগ্রহী লোকদের খুজে পেতে।

৪. এডসেন্স এর এড দেখিয়ে

এটা যেহেতু সবচেয়ে জনপ্রিয়, তাই এটি নিয়ে আসলে তেমন কিছু বলার প্রয়োজন নেই। এডসেন্স এপ্রুভাল পাওয়ার স্টেপগুলো জেনে নিতে পারেন, তাহলে সহজেই এপ্রুভাল পাবেন। আপনার ব্লগে ১০/১৫ টি ১৫০০+ শব্দের মাণসম্মত আর্টিকেল আর, ভিজিটর থাকলে সহজে এপ্রুভাল পাবেন। এর নিচে সহজে এপ্রুভাল পাওয়া যাবে না, কারণ তাতে লাভ নেই। ওরা এপ্রুভাল দিতেই চায়। ব্লগারে ড্যাশবোর্ডে একটা অপশনই আছে এডসেন্স এর জন্য।

৫. পেইড ওয়েবিনার আয়োজন করে

ওয়েবিনারের ধারণাটা এখন বেশ জনপ্রিয়। আপনার যদি কোন বিশেষ দক্ষতা থাকে বা, দক্ষতা সম্পন্ন কাউকে আপনার ব্লগে নিয়ে আসতে পারেন। তাহলে আপনার ব্লগের পাঠকদের জন্য ওয়েবিনারের আয়োজন করতে পারেন। মনে করুন আপনি ব্যাংকার, বিসিএস ক্যাডার বা, সফল ব্যবসায়ী। কিভাবে সফল হলেন, সেই সফলতার সূত্র শেখানোর একটি পেইড ওয়েবিনারের আয়োজন করে ব্লগের পাঠকদেরকে সেখানে Enroll করানো যাবে। এটি আয়ের একটি পদ্ধতি হতে পারে।

 

প্রশ্ন ও উত্তরঃ

ব্লগ থেকে কত টাকা আয় করা যায়?

এর কোন নির্দিষ্ট উত্তর নেই। অনেক ব্লগার আছেন যারা প্রতিদিন ১ থেকে ১০০০০ ডলার আয় করেন। আপনার লেখার বাণিজ্যিক মূল্যের উপর নির্ভর করে। মুলত আপনার ব্লগের যারা পাঠক তারা আপনার লেখা পড়ে কত টাকার পণ্য কিনতে আগ্রহী হবে সেটার উপর আয় নির্ভর করে। এর মাণে এই না যে সরাসরি আপনাকে পণ্য বিক্রি করতেই হবে। যে বিষয়েই ব্লগ লিখুন, দেখবেন পণ্যের বিজ্ঞাপনই দেখায়। সঙ্গত কারণে ইংরেজী ব্লগের আয় বাংলার চেয়ে অনেক বেশী।

কিভাবে ব্লগিং শুরু করবো?

যেকোন কাজে বিশেষজ্ঞ হওয়ার প্রথম ধাপ হচ্ছে শুরু করা। সবচেয়ে সহজে যেভাবে আপনি ব্লগে লিখতে পারেন, সেভাবে লেখা শুরু করে দিন। এরপর প্রয়োজন অনুযায়ী সবকিছু শিখে নিতে পারবেন। নিজের আগ্রহ যে বিষয়ে আছে, সেই বিষয়ে লিখবেন, তাহলে সফল হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশী থাকবে। গুগল ব্লগস্পটে ফ্রিতে ব্লগ তৈরি করা যায়, ওয়ার্ডপ্রেসে, উইক্স, উইবলি অনেক জায়গায় ফ্রি ব্লগ তৈরি করা যায়। আবার, লেখক ডট মি, Medium, Hubpages এর মতো সাইটেও লিখতে পারেন(প্রতিষ্ঠিত সাইটে লিখলে প্রথমেই ভিজিটর পাওয়া যায়, নিজে ব্লগ তৈরি করলে ধীরে ধীরে নিজের ব্রান্ড তৈরি করা যায়)।

ফ্রি ব্লগ থেকে আয় করা যায়?

হ্যা, যায়। যেকোন ফ্রি ব্লগ থেকেই আয় করা যায়। ব্লগস্পটে তো যেকোন এড দেখানো যায়, ফ্রি ওয়ার্ডপ্রেসে অবশ্য জাভাস্ক্রিপ্ট বা, কোন ধরণের এড দেখানো যায় না। তবে, উপরে যেগুলো লিখেছি, সেভাবে আয় করা যায়। মূল ব্যাপার হচ্ছে, ভিজিটর থাকতে হবে। আর, ভিজিটরেরা তাদের মনে যে জিজ্ঞাসা নিয়ে সার্চ করেছে, সেটার উত্তর যেখানে পাবে সেটাই পড়বে- ফ্রি নাকি পেইড ব্লগ তা দেখবে না।

বাংলা সাইট থেকে আয় করবো কিভাবে?

খুব সহজ, লিখবেন, ভিজিটর আসবে, বিভিন্নভাবে মনিটাইজ করবেন। বিশেষ কোন ব্যাপার নেই। বাংলা ব্লগে এডের CPM অনেক কম, তাই অনেক ভিজিটর আসলে তখন আয়ের আশা করতে পারবেন। তা না হলে আয়ের আশা করা ঠিক হবে না। আর হ্যা, আপনার যদি আর্টিকেল লেখার দক্ষতা থাকে, তাহলে আর্টিকেল রাইটার হিসেবেও আয় করতে পারবেন।

1
(Visited 10 times, 1 visits today)

এডমিন

Author: এডমিন

বিভিন্ন বিষয়ে প্রবন্ধ লেখার চেষ্টা করছি

Related Posts

গুগল এডসেন্স টিপস

গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় [ ২০২১ আপডেট]

গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় হচ্ছে এডসেন্স এর নিয়মগুলো মেনে চলা এবং ব্লগ/ ওয়েবসাইটের জন্য অর্গানিক ভিজিটর নিয়ে আসা। গুগল আপনার
এডসেন্স থেকে পাওয়া টাকা

গুগল এডসেন্স থেকে টাকা আয়ঃ মিথ এবং বাস্তবতা

নতুন যারা ব্লগিং বা, ইউটিউবিং করে গুগল এডসেন্স থেকে টাকা আয় করার কথা ভাবছেন তাদের জন্য এই লেখাটি লিখছি। অনেক
এডসেন্স থেকে পাওয়া টাকা

গুগল এডসেন্স একাউন্ট ব্যান হওয়ার প্রধান কারণ

আপনি যদি ব্লগার হয়ে থাকেন, আর আপনার একটি ব্লগ থাকে থাকে তাহলে এই লেখাটি আপনার জন্য। বাংলায়, ইংরেজীতে বা, যেকোন
আর্টিকেল লেখার নিয়ম গুলো

আর্টিকেল লেখার নিয়ম- অবশ্যপাঠ্য

আর্টিকেল লেখার নিয়ম সম্পর্কে জানতে হবে যদি আপনি যদি প্রফেশনাল আর্টিকেল রাইটার হিসেবে ক্যারিয়ার গড়তে চান। অথবা, যদি আপনি ফ্রিল্যান্সিং

Leave a Reply