ধ্বংস স্তূপ -ভাস্কর পাল

0

ধ্বংস স্তূপ

  • ভাস্কর পাল

 

পড়ে আছে কোন সে সময় জুড়ে-

কত না ইতিহাসের ইতির চিহ্ন

মুছে গেছে কত সৌধ কত ঐতিহ্য

কোন বিপর্যয়ে হয়েছে সব ধ্বংস।।

পড়ে আছে পৃথিবীর বুকে, ভূমিতলের ধূলি-

ধূলিমা মাখায় সজ্জিত সব স্তূপ গুলি।

নেমেছিল বৃষ্টি, ঘনায়ছিল কালো মেঘ রাশি

গর্জেছিল হুংকারে অশনি সংকেত

যুদ্ধ, যুদ্ধ!!

সব ধূলিমা লিপ্ত – সব স্তব্ধ।।

আকাশ সাজায়ে উঠেছিল করুন রবি

দিনের অন্ত ঘটিয়ে নতুন প্রভাতে।

চারিদিকে রক্তের চিহ্ন-

ছিটে ছিটে লেগেছিল চারপাশে,,

ধূ – ধূ প্রান্তর প্রশস্ত

যেথা ছিল অট্টালিকা – সৌধ।

স্তূপ গুলি আজ ভঙ্গুর

যেন চিহ্ন বহন করে বয়ে গেছে কেবল।

লক্ষ কোটি প্রাণ এলো গেলো-

বছর কাটিয়া বছর বাড়িল,

উগ্র হয়ে আসিল কত প্রকৃতির বিপর্যয়

স্মৃতি মৌন স্তূপে স্তূপে।

লিখিত রচিত সকল ইতির পত্রতে।।

জ্বলিয়াছে কবেই নিত্য দিবার – অবসানে

পুরাতন স্তূপে নতুন ভাস্কর মিলিছে

উচ্ছিঙ্খল – রূদ্র কোলাহল থামিয়া,

ধ্বংস স্তূপ স্তব্ধ হয়ে মাটিতে মিলিয়া-

শত ইতিহাস বহন করে চলেছে।।

 


আরো পড়ুন-


 


Screenshot 3
বিজ্ঞাপনঃ বই কিনুন, বই পড়ুন

0

ভাস্কর পাল

Author: ভাস্কর পাল

আমার নাম ভাস্কর পাল। জন্ম পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগনা জেলার ব্যারাকপুর অঞ্চলে। ছোটো থেকে মায়ের হাত ধরে বিদ্যালয়ের পত্রিকায় কবিতা লেখা শুরু। বিভিন্ন যৌথ বই এবং পত্রিকায় অনেক কবিতা প্রকাশিত হয়েছে। তাছাড়া ২০২২ সালে নিজের একটি একক কবিতার বই 'ফুলঙ্গিনী' প্রকাশিত হয়েছে।

নিচের লেখাগুলো আপনার পছন্দ হতে পারে

জানোয়ার ( ৭)

মানুষ যদি মানুষ না হত? সে জানোয়ার হত।কারন? জানোয়ারের চা'র ঠ্যাং।একদিন এক জানোয়ার গেল মাঠে, গিয়ে দেখল  এক জানোয়ার শুয়ে

ভিক্টোরিয়া পার্ক

ভিক্টোরিয়া পার্কে কি হয়? সবাই প্রেম করে, একজন আরেকজনের গলা জড়িয়ে ধরে। জড়িয়ে ধরে কি কয়? তুমি আমার হও, তুমি

কাবার ইমাম ক্ষুব্ধ

[ez-toc]কাবার ইমাম ক্ষুব্ধ মোঃ রুহুল আমিন কাবার ইমাম ক্ষুব্ধ আজি কেনো জানেন ভাই? কাবায় এসে হাজিরা সব ছবি তোলছে তাই।

স্বাধীনতার ঘ্রাণ

স্বাধীনতার ঘ্রাণ মোঃ রুহুল আমিন স্বাধীনতা এলো বাংলায় দীর্ঘ নয় মাস পর॥ নয়টি মাসে কতো মায়ের শূন্য হইলো ঘর! পাক

Leave a Reply