বরষণ শেষে – ভাস্কর পাল

0

বরষণ শেষে

  • ভাস্কর পাল

 

ঈশান কোণে মেঘের দাপট

এই উঠিল ঝড়

গুড় গুড় গুড় শব্দ শুনি

নামলো বরষণ।

টিপ টিপ থেকে টুপ টাপ করে

আসতে আসতে বিশাল

তেজি ঝড়ের দাপটে সবই

হচ্ছে উথাল পাথাল।

ঐ শোনা যায় গর্জনেতে

গর্জে ওঠে গজও

মেঘের আড়ালে মেঘনাদের সেই

বিপুল অট্টহাস্য।

গাছেরা সব দুলছে বড্ডো

তাল মিলিয়ে তালে

নৌকা দোলে নদীর জলে

ক্ষণিক হাওয়া দিলে।

সকল জীবই যে যার পথে

হারিয়ে গেছে কোথা

নাহি চিহ্ন জনমানবের

আসিছে বরষা।

চলল সে ধারা মুসুলধারে

প্রায় সে দু-ঘন্টা

মেঘেরা সব পেয়েছে ছাড়া

যাচ্ছে উড়িয়া।

প্রবল মেঘের বরষণ কেটে

হয়েছে মলিন আকাশ

শুভ্র মেঘে উজ্জ্বলিত

হয়েছে চারপাশ।

গাছপালা সব স্নান করেছে

ধুলো মুছেছে গায়

সবুজ হয়ে চকচকিত

আলোক ছোঁয়া পেয়ে।

আবার রবে অপেক্ষাতে

মেঘ ঘনিবার তরে

বরষণ শেষে মেঘেরা সব

যাচ্ছে উড়ে উড়ে।

 


আরো পড়ুন-


 


Screenshot 3
বিজ্ঞাপনঃ বই কিনুন, বই পড়ুন

0

ভাস্কর পাল

Author: ভাস্কর পাল

আমার নাম ভাস্কর পাল। জন্ম পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগনা জেলার ব্যারাকপুর অঞ্চলে। ছোটো থেকে মায়ের হাত ধরে বিদ্যালয়ের পত্রিকায় কবিতা লেখা শুরু। বিভিন্ন যৌথ বই এবং পত্রিকায় অনেক কবিতা প্রকাশিত হয়েছে। তাছাড়া ২০২২ সালে নিজের একটি একক কবিতার বই 'ফুলঙ্গিনী' প্রকাশিত হয়েছে।

নিচের লেখাগুলো আপনার পছন্দ হতে পারে

ঈশ্বর আল্লা ভগবান

আল্লাহকে যদি পাইতে হয়? ইবাদত করতে হবে। সে ইবাদত কি আমরা করি? না। তাহলে? আমাদের পরিনাম জাহান্নাম।   এ জাহান্নাম

ফুল (৯)

কাল যে ফুলটি ফুটেছে আজ সে ফুলটি ফোটেনি । সে ফুলটির নাম 'সুন্দর '। সে ফুলটি তুমি আমাকে দিলে, আমি

ও আমার অনাগতা প্রিয়া

একদিন একজনকে আমি  বলেছিলাম, এই আমাকে একটি ফুল দাওতো।সে আমাকে একটি ফুল দিয়েছিল।আজ আমার ভীষণ তাকে মনে পড়ছে।মন চাচ্ছে তাকে

পড়ছে মনে মাকে

  পড়ছে মনে ভীষণ ভাবে প্রবাসে আজ মাকে, এই প্রসাবে কে আমায় বলো খোকা বলে ডাকে। মাকে ছেড়ে বাবার ছেড়ে

Leave a Reply